নতুন গ্যাসের সন্ধানে জরিপ শুরু

বিজনেসটাইমস২৪.কম
সিলেট, ০৮ এপ্রিল, ২০১৩:

গ্যাসেনতুন গ্যাসস্তর সন্ধানে গত শনিবার থেকে শুরু হয়েছে ত্রি-মাত্রিক ভূতাত্তিক (সিসমিক) জরিপ।
জেলার বিশ্বনাথের অলংকারী ইউনিয়নের উত্তর খুরমা এলাকা থেকে এই জরিপ কাজ শুরু করছে মার্কিন কোম্পানি শেভরণ। শেভরণ এই জরিপ কার্যক্রমের নাম দিয়েছে ‘জালালাবাদ ত্রি ডায়মেনশন সিসমিক সার্ভে।’
পর্যায়ক্রমে সিলেট নগরীসহ জেলার ৬টি উপজেলায় এই জরিপ চালানো হবে।

ইতোমধ্যে এসব উপজেলার গ্যাসপ্রাপ্তির সম্ভাব্য স্থানগুলোতে প্রাথমিক জরিপ কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

শেভরণ সূত্র জানায়, জালালাবাদ গ্যাসক্ষেত্রের আশপাশ এলাকায় নতুন গ্যাসস্তর প্রাপ্তির সম্ভাবনায় ২০১২ সালের অক্টোবর মাস থেকে অস্ট্রেলিয়ান কোম্পানি জিও কাইনেটিকের মাধ্যমে সিলেট জেলার ৩৯৪ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে প্রাথমিক জরিপ কাজ শুরু হয়।

এই এলাকার মধ্যে রয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ড, পার্শ্ববর্তী সিলেট সদর, দক্ষিণ সুরমা, জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট, বিশ্বনাথ ও গোলাপগঞ্জ উপজেলা। ২০১২ সালের অক্টোবর থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত এসব এলাকায় প্রাথমিক জরিপ (ভূমি জরিপ কার্যক্রম ও তথ্য সংগ্রহ) কাজ চালানো হয়।

গ্যাস অনুসন্ধানের দ্বিতীয় ধাপ সিসমিক জরিপ শনিবার বিশ্বনাথের উত্তর খুরমা থেকে শুরু হচ্ছে। এই জরিপ কার্যক্রম শেষে গ্যাস স্তর সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা পেতে চলতি বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন শেভরণ কর্মকর্তারা।

শেভরণ সূত্র আরো জানায়, গ্যাস অনুসন্ধানের ক্ষেত্রে নেয়া হয়েছে সর্বাধিক সতর্কতা। ঝুঁকি এড়াতে সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকায় জিও ফোনের মাধ্যমে ভূ-তাত্ত্বিক জরিপ চালানো হবে। আর উপজেলা পর্যায়ে ভূগর্ভস্থ কম্পনের মাধ্যমে চালানো হবে জরিপ। তবে এরকম জরিপে পরিবেশ ও প্রতিবেশের কোন ক্ষতির আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছেন শেভরণ কর্মকর্তারা।

সংশি¬ষ্ট সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৮ সালে সিলেট শহরতলীর লাক্কাতুড়ায় গ্যাসের সন্ধান পায় শেভরণ। এরপর ১৯৯৯ সাল থেকে তারা লাক্কাতুড়া থেকে গ্যাস উত্তোলন শুরু করে। প্রথম দিকে ৮০ এমএমসিএফ গ্যাস উত্তোলন করলেও বর্তমানে শেভরণ প্রতিদিন ২০০-২৫০ এমএমসিএফ গ্যাস উত্তোলন করছে।

গত ১৩ বছর ধরে গ্যাস উত্তোলনের পরও গ্যাসের চাপ না কমায় গ্যাসক্ষেত্রের ৪টি কূপের আশপাশ এলাকায়ও নতুন গ্যাস প্রাপ্তির সম্ভাবনা দেখা দেয়। এই সম্ভাবনা থেকে শেভরণ সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকাসহ পার্শ্ববর্তী ৬টি উপজেলায় নতুন গ্যাস স্তর অনুসন্ধানে নামে।

শেভরণের সহকারী ব্যবস্থাপক (কমিউনিকেশন) বদরুদ্দোজা বদর বলেন, সিলেট নগরী ও পার্শ্ববর্তী উপজেলাগুলোতে গ্যাস প্রাপ্তির সম্ভাবনা থাকায় জরিপ কাজ চালানো হচ্ছে। প্রাথমিক জরিপ কাজ শেষে সিসমিক জরিপ কাজ শুরু হয়েছে।
সূত্র: বাসস

মন্তব্য প্রদান করুন

*


*