এলডিপি’র ইফতারে খালেদা জিয়া

‘ঈদের পর অবৈধ সরকারকে বিদায় করা হবে’

বিজনেসটাইমস২৪.কম
ঢাকা, ০৮ জুলাই, ২০১৪:

khaledaঈদের পর বর্তমান অবৈধ সরকারকে বিদায় করা হবে বলে হুঁশিয়ার করে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, ঈদের পর কর্মসূচি দেয়া হবে। অবৈধ সরকারকে বিদায় করা হবে। নেতাকর্মীদের তৈরি থাকতে হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর ইস্কাটনের লেডিসক্লাবে রাজনৈতিক নেতাদের সম্মানে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) আয়োজিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জালিম সরকারের বিরুদ্ধে সবাই ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, আসুন সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে এ জালিম সরকারের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলি।

তিনি বলেন, এ রমজান মাসে আল্লাহ দোয়া কবুল করেন। আসুন, আমরা আল্লাহর কাছে দোয়া করি- আল্লাহ যেন এ জালেম-অত্যাচারী সরকারের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করেন।

খালেদা জিয়া বলেন, আমাদের ডাকে অনেকেই সারা দিচ্ছে মন্তব্য করে খালেদা জিয়া বলেন, ইতোমধ্যেই সাম্যবাদী দল আমাদের সাথে শরিক হয়েছে। ছোট-বড় অনেকেই আমাদের সাথে যোগাযোগ করছে।

সরকারকে হুঁশিয়ার করে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী বলেন, বন্দুকের জোরে আজীবন ক্ষমতায় থাকবেন না। একদিন ক্ষমতা ছাড়তে হবে। তখন এ বন্দুকই আপনাদের বিরুদ্ধে যাবে।

‘দিনে দিনে এ অবৈধ জালিম সরকারের অত্যাচার-নির্যাতন বাড়ছে’ দাবি করেন খালেদা জিয়া।

তিনি বলেন, দেশে আইনের শাষণ নেই। সবাই গুম-খুনে ব্যস্ত। এসবের সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব জড়িত- বিশেষ করে র‌্যাব। তারা এখন টাকার বিনিময়ে মানুষ হত্যার মতো কাজ করছে। তাই এ র‌্যাব বাতিল করতে হবে। র‌্যাব যতদিন থাকবে ততদিন গুম-খুন বন্ধ হবে না।

ইফতার পার্টিতে ২০ দলের নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- লেবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ, জাতীয় পার্টির (জাফর) ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ডা. টি আই এম ফজলে রাব্বী, মহাসচিব মোস্তাফা জামাল হায়দার, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, ইসলামী ঐক্যজোটের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল লতিফ নেজামী, খেলাফত মজলিশের আমির অধ্যক্ষ মাওলানা মুহম্মদ রহমান, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) চেয়ারম্যান শেখ শওকত হোসেন নিলু, মহাসচিব ডা. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মো. ইব্রাহিম, এনডিপি চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা, ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গণি, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মুস্তাফিজুর রহমান ইরান, ইসলামিক পার্টির আব্দুল মবিন, মুসলিম লীগের সভাপতি এ এইচ এম কামরুজ্জামান খান, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ-ভাসানী) চেয়ারম্যান এডভোকেট মো. আজহারুল ইসলাম, সাম্যবাদী দলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাঈদ আহমেদ, জামায়াতে ইসলামীর কর্মপরিষদের সদস্য রেদোয়ান উল্লাহ শাহেদী, মাওলানা আব্দুল হালিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির পক্ষে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য জমির উদ্দিন সরকার, এম কে আনোয়ার, তরিকুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস-চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন, নির্বাহী কমিটির সদস্য ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, অর্থবিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সালাম, যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ ইফতার পার্টিতে যোগ দেন।

মন্তব্য প্রদান করুন

*


*