জাতীয় পার্টির (জাফর) ইফতারে খালেদা জিয়া

‘আলোচনায় না হলে আন্দোলনে এ সরকারের বিদায়’

বিজনেসটাইমস২৪.কম
ঢাকা, ১৩ জুলাই, ২০১৪:

wwসাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, আলোচনার মাধ্যমে সমাধান না হলে আন্দোলন করেই এ অবৈধ সরকারকে বিদায় করা হবে।

রবিবার রাজধানীর গুলশানে হোটেল ওয়েস্টিনে জাতীয় পার্টি (জাফর) আয়োজিত ইফতার মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

খালেদা জিয়া বলেন, দেশে আজ গণতন্ত্র নির্বাসিত। জনগণের কোনো অধিকার নেই, মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নেই। প্রতিনিয়ত গুম-খুন হচ্ছে। তাই এ অবৈধ সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরাতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন আন্দোলন। আমরা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান চেয়েছিলাম। কিন্তু আলোচনায় কোনো লাভ হবে না, তখন আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই। আন্দোলন করেই এদের বিদায় করা হবে।

তিনি বলেন, রমজানেও মানুষের শান্তি নেই। দ্রব্য মূল্য মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে- এদিকে সরকারের নজর নাই। দেশে লুটেরাদের শাষণ চলছে। ডেসটিনি, হলমার্ক, বিসমিল্লাসহ সব আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করে দেয়া হচ্ছে। ব্যাংকগুলোতে লুটপাট চালিয়ে দেওলিয়া করে দেয়া হয়েছে।

খালেদা জিয়া বলেন, আজকে পার্লামেন্টে জনগণের প্রতিনিধি নেই। সেখানে জনগণের স্বার্থ নিয়ে কথা বলা হয় না- এখন সেখানে গান-বাজনা হয়। সংসদ আজ সংদের আড্ডাখানা বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

জনগণ চায় তাদের প্রতিনিধিত্বমূলক সরকর। আসুন, নিজেদের অধিকার আদায়ে ঐক্যবদ্ধ হই।

তিনি বলেন, দেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ। ৯৫ ভাগ লোক আমাদের সাথে আছে। নতুন প্রজন্ম ভোট দিতে পারেনি। তারা ভোট দিতে চায়। তাই তাদের হাতে নেতৃত্ব ছেড়ে দিতে হবে। আমাদের দেশের তরুণ প্রজন্ম অনেক মেধাবী।

অনুষ্ঠানে ছিলেন- জাতীয় পার্টির (জাফর) চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমেদ, ড. তুহিন মালিক, পিয়াস করিম, গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ডা. জাফরুল্লাহ প্রমুখ। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত, জাপান, রাশিয়া, চীন, কুরিয়া, মরক্কো, লিবিয়ার রাষ্ট্রদূতও উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ২০ দলীয় জোট নেতাদের মধ্যে- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আর  এ গণি, আব্দুল মঈন খান, আ স ম হান্নান শাহ, ভাইস-চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, বেগম সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এনাম আহমেদ চৌধুরী, জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের, নায়েবে আমীর দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী’র ছেলে শামিম সাঈদী, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহিম, জাগপা চেয়ারম্যান শফিউল আলম প্রধান, এনপিপি’র চেয়ারম্যান শেখ শওকত হোসেন নিলু, জেবেল রহমান গানি, ইসলামী ঐক্যজোটের মাওলানা সাখাওয়াত, জাতীয় পার্টির (জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. টিএম আই ফজলে রাব্বি, এম এম আলম, নবাব আলী আব্বাস, আহসান হাবিব লিংকন, খালিকুজ্জামান চৌধুরী, আতিকুর রহামন আতিক, সফিউদ্দিন ভূইয়া, মাওলানা রুহুল আমিন প্রমুখ।

মন্তব্য প্রদান করুন

*


*