বিমা কোম্পানির দৈনিক ক্ষতি ১৫ কোটি টাকা

বিজনেসটাইমস২৪.কম
, ২০ জানুয়ারী, ২০১৫:

BIA-1হরতাল-অবরোধে বিমা কোম্পানিগুলোর দৈনিক ক্ষতির পরিমাণ ১৫ কোটি টাকা বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশন (বিআইএ)। আর সার্বিক অর্থনীতিতে এই ক্ষতির পরিমাণ ১ হাজার ৬০০ কোটি টাকা।

সোমবার বিআইএর কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সংগঠনটির সভাপতি শেখ কবির হোসেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২০১৪ সালের ডিসেম্বর থেকে চলতি বছরে এ পর্যন্ত প্রায় ৪০০টি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে এসব গাড়ির মধ্যে কতটির বিমা করা আছে তার সঠিক তথ্য বিআইএর কাছে নেই।

এক প্রশ্নের জবাবে শেখ কবির হোসেন বলেন, হরতাল-অবরোধে ক্ষতিগ্রস্ত গাড়ির বিমা দাবি পেতে অবশ্যই এর জন্য কাভারেজ নিতে হবে। এ জন্য আলাদা প্রিমিয়ামও পরিশোধ করতে হবে। হরতাল-অবোরোধের বিমা কাভারেজ নেওয়া নেই এমন কোনো গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হলে বিমা দাবি পাবে না।

আরেক প্রশ্নের জবাবে বিআইএ সভাপতি বলেন, কী পরিমাণ গাড়ির হরতাল কাভারেজ নেওয়া আছে সে তথ্য আমাদের কাছে নেই। ভবিষ্যতে আমরা এ তথ্য সংগ্রহ করবো। তবে ২০১৩-১৪ সালের রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে ১ হাজার কোটি টাকার বিমা দাবি আসছে।

সংবাদ সম্মেলনে অর্থনীতিতে হরতাল-অবরোধের প্রভাবের বিষয়ে বলা হয়, হরতাল-অবরোধে একদিনে সার্বিক অর্থনীতির ক্ষতি হয় ১ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। বছরে এ ক্ষতির পরিমাণ ৬৪ হাজার কোটি টাকা; যা জিডিপির ৬ দশমিক ৫ শতাংশের সমান।

বিআইএ জানায়, একদিনের হরতাল-অবরোধে পোশাক খাতে ক্ষতি হয় ৩৬০ কোটি টাকা। বছরে এর পরিমাণ ১৪ হাজার ৪০০ কোটি টাকা। সরকারি রাজস্ব খাতে একদিনের ক্ষতি ২৫০ কোটি টাকা। বছরে যার পরিমাণ ১০ হাজার কোটি টাকা। শিক্ষা খাতে একদিনের ক্ষতি ৫০ কোটি টাকা। আর বছরে এর পরিমাণ ২ হাজার কোটি টাকা।

হরতাল-অবরোধে সব থেকে বেশি ক্ষতির মুখে পড়ে পাইকারি মার্কেট, শপিংমল এবং অন্যান্য শপ। একদিনের হরতাল-অবরোধে এ খাতে ক্ষতি হয় ৬০০ কোটি টাকা। বছরে যার পরিমাণ দাঁড়ায় ২৪ হাজার কোটি টাকা।
আর্থিক ও ভ্রমণ খাতে হরতাল-অবরোধে একদিনের ক্ষতি ৫০ কোটি টাকা। বছরে এর পরিমাণ ২ হাজার কোটি টাকা। যাতায়াত খাতে একদিনে ক্ষতি ৬০ কোটি টাকা এবং বছরে ২ হাজার ৪০০ কোটি টাকা। উৎপাদন খাতে একদিনে ক্ষতি ১০০ কোটি এবং বছরে ৪ হাজার কোটি টাকা। আর অন্যান্য খাতে একদিনের ক্ষতি ৬৫ কোটি এবং বছরে ২ হাজার ৬০০ কোটি টাকা।

হরতাল-অবরোধে বিমা কোম্পানির ক্ষতির বিষয়ে বিআইএর সহ-সভাপতি আহছানুল ইসলাম টিটু বলেন, হরতাল-অবরোধ হলে বিমা কোম্পানি বিনিয়োগ, আমদানি-রপ্তানি, প্রিমিয়াম আয়, বিমা দাবি পরিশোধ সব দিক থেকেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ হিসাবেই একদিনে বিমা কোম্পানির ক্ষতি হয় ১৫ কোটি টাকা।

হরতাল-অবরোধ বন্ধে এফবিসিসিআইর আইন ক্ষতিয়ে দেখার বিষয়ে জানতে চাইলে শেখ কবির বলেন, আইনি সুযোগ থাকলে আমরাও এফবিসিসিআইর সঙ্গে আছি। তবে যা কিছু করতে হয়, আইনের ভেতরে থেকে করতে হবে।

রাজনৈতিক অস্থিরতা বন্ধে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে সংলাপে বসাতে বিআইএর পক্ষ থেকে কোনো উদ্যোগ নেওয়া হবে কি না জানতে চাইলে বিআইএ সভাপতি বলেন, আমরা কোনো কিছুতে জোর করতে পারি না। তবে গণমাধ্যমের মাধ্যমে আহ্বান জানাতে পারি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি আহছানুল ইসলাম টিটু, নীটল ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান কে এম মনিরুল হক এবং কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্সের ভাইস-চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিন পাভেল।

মন্তব্য প্রদান করুন

*


*