‘মার্চেন্ট ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে পুঁজিবাজারে আসা উচিত নয়’

বিজনেসটাইমস২৪.কম
, ২০ জুন, ২০১২:

মার্চেন্ট ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করা উচিত নয় বলে মন্তব্য করেছেন মডার্ন সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খুজিস্তা নূর-ই-নাহরিন।

তিনি বলেন, যারা মার্চেন্ট ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে ব্যবসা করেছে  তারাই সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমি অনুরোধ করব আপনারা নিজেরা এই বিপদে পড়বেন না আমাদেরও ফেলবেন না। কারণ আপনাদের বিনিয়োগেই আমরা বেঁচে আছি,  আমাদের ব্রোকারেজ হাউজ বেঁচে আছে।

একই সঙ্গে তিনি অর্থমন্ত্রীর সমালোচনা করে বলেন, পুঁজিবাজারে বিক্ষোভ হয় কিছু যুবক শেয়ার কেনাবেচা করে সেই কারণে। বাজারে যদি তরুণরা আসে তাহলে অর্থমন্ত্রীর সমস্যা কি তা আমার বোধগম্য নয়? তারা তো এখানে বসে মদ খাচ্ছে না, সন্ত্রাসী করছে না এমনকি ছিনতাই-রাহাজানি করছে না।  তারা যদি এসে সুষ্ঠুভাবে শেয়ার কেনাবেচা করে তাতে সমস্যা কি ? কিন্তু আমাদের অর্থমন্ত্রী তাদের অভিনন্দন জানাননি বরং  আরো তিরস্কার করেছে।

সম্প্রতি মডার্ন সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খুজিস্তা নূর-ই নাহরীন বিজনেসটাইমস২৪.কমের রিপোর্টার কল্পনা আলমের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাকারে এসব কথা বলেন। সেই সঙ্গে তিনি শেয়ারবাজারের  সার্বিক অবস্থা, সংকট ও কিভাবে সংকট থেকে উত্তরণ করা যায় তা নিয়ে  কথা বলেন।

এখানে সাক্ষাকারের অংশ বিশেষ পাঠকদের জন্য  তুলে ধরা হলো :

বিজনেসটাইমস : এখন পুঁজিবাজার আস্থা ফিরে পাচ্ছে না কেন? এর পেছনে কি কারণ রয়েছে বলে আপনি মনে করেন ?

খুজিস্তা নূর-ই-নাহরিন :  এখন যে বাজার আস্থা খুঁজে পাচ্ছে না তার অনেকগুলো কারণ রয়েছে বলে আমি মনে করছি। আপনারা জানেন এসইসির ২সিসি ধারার বিরুদ্ধে দায়ের করা রিট আদালতে ঝুলে আছে, এর রেজাল্ট কি হবে । এটা কিন্তু পুঁজিবাজারের এখন সবচেয়ে বড় সংকট ।  তাছাড়া পরিচালকরা অনেক দামি শেয়ার বিক্রি করেছে, এখন যখন মার্কেটের খারাপ অবস্থা তখন কিন্তু তারা শেয়ারহোল্ড করছে না। বরং তারা একটা কোম্পানির রুল করছে। মার্কেটে যদি তাদের শেয়ারই না থাকে তাহলে তাদের কতখানি দায়িত্ববোধ থাকবে।

বিজনেসটাইমস:  বেশ কয়েকদিন ধরে দেখতে পাচ্ছি বাজারে লেনদেন কমে যাচ্ছে এর পেছনে কি কারণ রয়েছে ?

খুজিস্তা নূর-ই-নাহরিন :  বাজারে লেনদেন কমে যাওয়ার পেছনে অনেক কারণ রয়েছে। বাজার খারাপ হওয়ার পর নানা সময়ে অনেক সংগঠন বাজার থেকে শেয়ার কেনার ঘোষণা দিয়েছিল। যেমন:  বিএমবি ঘোষণা দিয়েছিল ওরা পাঁচ হাজার কোটি টাকার শেয়ার কিনবে, আইসিবি কিনবে কিন্তু তারা  কিনেনি।  ঘোষণানুযায়ী শেয়ার না কেনায় বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থার সংকট তৈরি হয়েছে। আর একটা কারণ হচ্ছে যে, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ করার কথা থাকলেও তারা মার্কেটে আসছে না। এসব কারণে বাজারে লেনদেনের পরিমাণ দিনদিন কমে যাচ্ছে।

বিজনেসটাইমস : অনেকে মনে করেন এমএসএ প্লাসের জন্য মার্কেটে টার্নওভার কমে গেছে আপনি সেটি মনে করেন কিনা ?

খুজিস্তা নূর-ই-নাহরিন :  এমএসএ প্লাস  নতুন একটা সফটওয়্যার।  আমরা কিন্ত এখনও এ প্রযুক্তির সঙ্গে পরিচিতি হই নাই। সে কারণে আমরা অনেকেই এই এমএসএ প্লাস সম্পর্কে জানি না কিংবা বুঝতে সমস্যা হচ্ছে। এছাড়া এটার অনেক রকম সমস্যা রয়েই গেছে। যেমন আমরা আশা করেছিলাম এই সফটওয়্যারের ফলে শটসেল হবে না। কিন্তু দেখা যাচ্ছে এখনও শর্টসেল হচ্ছে। বাজারে জিবি পাওয়ার নামে নতুন যে শেয়ার এসেছে ওখানে আমরা দেখেছি যে শেয়ার সেলের অর্ডার দেয়া হয়েছিল তার দ্বিগুণ সেল হয়েছে। এই শর্টসেল কিন্তু  আমাদের যথেষ্ট দুশ্চিন্তায় ফেলেছে। তাছাড়া এই সফটওয়্যারের অনেক রকম জটিলতা রয়েছে। এ কারণে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা ট্রেড করতে ভয় পাচ্ছে। যার কারণে লেনদেন কমে যাচ্ছে। এটা ঠিক হতে সময় লাগবে। আমি মনে করি  এ সময় সফটওয়্যারটা চালু করা উচিত হয়নি।  এমনিতেই বাজার খারাপ তারমধ্যে নতুন এই সফটওয়্যার চালু সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নয়।

বিজনেসটাইমস : এবারের বাজেটে পুঁজিবাজারে যেসব সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়েছে সেগুলো কি যথাযথ মনে করেন ?

খুজিস্তা নূর-ই-নাহরিন :  এবারের বাজেটে কিন্তু সে রকম নতুন কিছু আসেনি। যেগুলো এসেছে তা কতখানি যুক্তিযুক্ত এবং এর সুবিধা আদৌ বিনিয়োগকারীরা পাবে কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। আর সরকার যে প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে তা কিন্তু পুরোপুরি ক্লিয়ার না। প্রণোদনা প্যাকেজ নিয়ে সর্বোপরি সবার মাঝে ধোঁয়াশার ব্যাপারটা রয়েই গেছে।

বিজনেসটাইমস : পুঁজিবাজারকে আরো গতিশীল করতে এবং বিনিয়োগকারীদের বাজারে ফেরাতে কি করা উচিত বলে আপনি মনে করেন ?

খুজিস্তা নূর-ই-নাহরিন : আমি মনে করি কেউ একা পুঁজিবাজারের গতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে পারবে না। এটা আস্তে আস্তে ফিরিয়ে আনতে হবে। আর গতিশীলতার জন্য যেটা দরকার তাহলো সবার আগে পুঁজিবাজারের ওপরে বিশ্বাস স্থাপন করতে হবে । সেই সঙ্গে পুঁজিবাজারে যারা দায়িত্বশীল ব্যক্তি আছে তাদের দায়িত্বপূর্ণ আচরণ করা উচিত। কারণ শেয়ার বাজার খুব সেনসেটিভ একটা ব্যাপার। এখানে দায়িত্বপূর্ণ একজন ব্যক্তি নেগেটিভ আচরণ করলে এর প্রভাব মার্কেটে পড়ে। তাই বিনিয়োগকারীদের কথা ভেবে তাদের নেগেটিভ মন্তব্য থেকে বিরত থাকা উচিত।

বিজনেসটাইমস : বিনিয়োগকারীদের কি করা উচিত বলে মনে করেন ? বিনিয়োগকারীদের প্রতি আপনার পরামর্শ কি ?

খুজিস্তা নূর-ই-নাহরিন : বিনিয়োগকারীদের দেখে-শুনে বাজারে বিনিয়োগ করা উচিত। আগে অল্প টাকা নিয়ে আসেন, আগে শিখেন তারপর বিনিয়োগ করেন। বেশি লাভের আশায় না বুঝেশুনে শর্টকাট পদ্ধতিতে বড়লোক হতে চেয়েছে, ইনভেস্ট করেছে এবং শেষ পর্যন্ত পরিণামে হতাশাগ্রস্ততা তাদের গ্রাস করেছে।

আমি আগেও বলেছি এখনও বলছি আপনার যদি এক্সট্রা মানি থাকে সেই টাকাটা আপনি পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করেন। অনেকে আছেন জমি-গয়না এমনকি নিজের সব কিছু বন্ধক রেখে বিনিয়োগ করেন। আমি আবারো বলছি এভাবে কখনো বিনিয়োগ করবেন না। আর একটা কথা আপনারা মার্চেন্ট ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করবেন না।  এ সময় যারা মার্চেন্ট ব্যাংক থেকে লোন নিয়েছে তারাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করব আপনারা নিজেরা এই বিপদে পড়বেন না আমাদেরও ফেলবেন না।

Comments

  1. rashid says:

    bhai ata dia ki bujate chaccen. kicu to bujlam na, ar madan asob boro boro kotha na bple govt ke bujan, doler lok apnara apnara jodi kicu korte na paren ka parbe.

  2. Murad Minhaj Khan says:

    সময় উপযোগী শেয়ার ব্যবসায় বিনিয়োগ কারিদের জন্য সঠিক দিকনির্দেশনা।। ধন্যবাদ খুজিস্তা নূর-ই-নাহরিন

মন্তব্য প্রদান করুন

*


*